হালিশহরে প্রবাসীকে জিম্মি করে নারীসহ ছবি তুলে চাঁদা দাবি, আটক ১

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

চট্টগ্রামের হালিশহর বি ব্লক এলাকায় আবু ইউসুফ নামের এক প্রবাসীকে ঘরে আটকে রেখে নারীসহ ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবার ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবির ঘটনা ঘটেছে। বুধবার ( ২১ এপ্রিল) দুপুরে হালিশহর বি ব্লকের ট্রেড স্কুলের পাশে একটি বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগীর ছেলে আরাফাত হোসেন সজিব জানায়, বুধবার দুপুরে তার পিতা ইতালী প্রবাসী আবু ইউসুফ বি ব্লকের ৯ নং লেইনের শেষ মাথায় নিজের বাড়িতে ভাড়া তুলতে যায়। এসময় স্থানীয় দুই যুবক এক নারীকে নিয়ে এসে জোর করে আবু ইউসুফকে ধরে রুমে নিয়ে গিয়ে ছবি তুলে। ছবি উঠিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবার ভয় দেখিয়ে চার লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করে ফোন করে পরিবারের সদস্যদের কাছে।

পরে পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে তাকে উদ্ধার করার চেষ্ট করে। এসময় প্রবাসী আবু ইউসুফ ও তার ছেলে সজিবকে মারধর করে দূর্বৃত্তরা। মারধরের ঘটনায় স্থানীয় আরো কিছু যুবক এসে যোগ দেয়৷

এ ঘটনায় জড়িতদের একজন নুরুল ইসলাম মিরন নিজেকে পুলিশ সদস্য হিসেবে পরিচয় দেয়। এছাড়া একই চক্রের অন্যজন আরেফিন সোহাগ নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দেয়।

পরে, পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে প্রবাসী ইউসুপ ও তার ছেলেকে উদ্ধার করে। এ ঘটনায় হালিশহর থানায় ১০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগীর ছেলে আরাফাত হোসেন সজিব।

হালিশহর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) এ ঘটনায় ১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৪ ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। দুইজন আটক করা হয়েছে। দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হচ্ছে।

থানা সুত্রে জানা যায়, মহিউদ্দিন সুমন, মিল্টন, ছোটন, সোনিয়া, মোহাম্মদ হৃদয়, পারভেজ, মোহাম্মদ সোহেল, মোহাম্মদ মামুন, মনাইয়া মনা, নুরুল ইসলাম মিরন – এই দশজনকে মামলার আসামী করা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই সাহেদ জানান, এ ঘটনায় জড়িতদের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার নাম সোহেল। সোহেলের বিরুদ্ধে মান্না হত্যা মামলাসহ ৪/৫ টি মামলা রয়েছে। জানা যায় মোহাম্মদ সোহেল গত সপ্তাহে জামিনে আসে।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (পশ্চিম) পলাশ ক্লান্তি নাথ জানান, এ ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

মতামত