চট্টগ্রামে নকল স্বর্ণের দিয়ে প্রতারণা, দোকানদার’সহ ৩ প্রতারক গ্ৰেফতার

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

প্রতারক চক্রের সদস্য দুই  রিক্সা চালকের প্রতারণার খপ্পরে পরে স্বর্ণের বারের (নকল) লোভে খোয়ালেন নিজের আসল স্বর্ণ।এ ঘটনায় ভুক্তভোগী শুক্লা দে বাাদি হয়ে মামলা করলে কোতোয়ালী থানাধীন হাজারী লেইনস্থ মনিরাজ জুয়েলার্সে অভিযান চালিয়ে দোকানের মালিকসহ ৩ প্রতারককে আটক করেছে কোতোয়ালী থানা পুলিশ। এসময় ১ জোড়া ৩ আনা ওজনের কানের দুল, ১টি ৪ আনা ওজনের আংটির গলিত স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়।

গতকাল শুক্রবার ৩০ এপ্রিল বিকাল ৫ঃ৩০ মিনিটের সময় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়েছে বলে জানান অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া কোতোয়ালি থানার এসআই মোঃ মুমিনুল হাসান।

আটককৃত আসামীরা হলেন, রিক্সা চালক মো. জালাল মিয়া(৪৫) ও মো. কবির হোসেন(৩৫)  এবং ক্রেতা মুধুসুদন চৌধুরী (৬৫)

কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি মোঃ নেজাম উদ্দিন জানান, আসামীরা প্রতারক চক্রের সদস্য। তারা  রিক্সাযোগে এই ধরনের প্রতারণা কার্যক্রম করে থাকে। মহিলাদেরকে টার্গেট করে কাগজে পেচানো স্বর্ণের বার সাদৃশ্য বস্তুটি দেখিয়ে বলে, “আমি গরিব মানুষ এত ওজনের স্বর্ণ দিয়ে কি করব, দিদি আপনারা এটা কিছু টাকা পয়সা দিয়ে নিয়ে নেন বা আপনাদের কাছে যে স্বর্ণালংকার আছে সেগুলো আর কিছু টাকা-পয়সা দিয়ে আপনারা এই স্বর্ণের বারটি রেখে দেন।” রিক্সার ড্রাইভার মহিলা যাত্রীদেরকে লোভ দেখিয়ে মহিলাদের কাছে থাকা গলার চেইন, আংটি ও নগদ টাকা নিয়ে নকল স্বর্ণের বারটি দিয়ে দেয়। পরবর্তীতে রিক্সার ড্রাইভার যাত্রীদেরকে গন্তব্যস্থলে পৌছে দিয়ে গাড়ি থেকে নামিয়ে দেয় এবং মূহূর্তের মধ্যে রিক্সা নিয়ে উধাও হয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, তারা সকলেই হাজারী গলি গিয়ে স্বর্ণালংকারসমূহ বিক্রয় করে যে টাকা পায় সে টাকা নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নিয়ে নেয়। হাজারী গলিস্থ স্বর্ণালংকার ব্যবসায়ী কমমূল্যে উক্ত স্বর্ণালংকারসমূহ ক্রয় করে নেয়। আসামীরা দীর্ঘ ৭/৮ বছর যাবৎ এই ধরনের প্রতারণামূলক কার্যক্রম করে আসছে। আসামীদের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ঘটনার বিবরনে জানা যায়, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর দামপাড়াস্থ স্বাস্থ্য বিভাগের জনৈকা শুক্লা দে ও গোপী বিশ্বাস (৪০) রিক্সযোগে চকবাজার থানাধীন গোল পাহাড় মোড়স্থ ডাচ বাংলা ব্যাংকের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। পথিমধ্যে সিডিএ বিল্ডিং এর গেইটের সামনে পৌঁছামাত্র রিক্সার সামনের চাকার সামনে রাস্তার উপর হতে প্যাকেটে মোড়ানো একটি স্বর্ণের বার পেয়ে পকেটে নিয়ে নেয়। কোতোয়ালী থানাধীন নন্দনকানন ডিসি হিলস্থ বন সংরক্ষণ কার্যালয়ের গেইটে সামনে  রিক্সার চেইন নষ্ট হয়ে গেছে বলে শুক্লা দে ও গোপি বিশ্বাস কে তাদের পিছনে থাকা অপর রিক্সা ঠিক করে দেয়। এসময় উভয় রিক্সা চালক বলে যে, আমরা গরিব মানুষ এত ওজনের স্বর্ণ দিয়ে কি করিব, দিদি আমাদের কিছু টাকা-পয়সা অথবা স্বর্ণালংকার দিয়ে আপনারা এই স্বর্ণের বারটি রেখে দেন। জনৈকা শুক্লা দে সরল বিশ্বাসে তাদের কথায় রাজি হয়ে তাদের সাথে থাকা ১ জোড়া ৩ আনা ওজনের কানের দুল, ১টি ৪ আনা ওজনের আংটি, ও নগদ ৪০০ (চারশত) টাকা দিয়ে উক্ত স্বর্ণের প্যাকেট করা স্বর্ণের বারটি নিয়ে নেয়। পরে প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পেরে কোতোয়ালি থানায় অভিযোগ করে। পরে অভিযান চালিয়ে  তাদের আটক করা হয় এবং স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়।

মতামত