ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে চকবাজারে অভিযান, তোপের মুখে চসিকের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোর্শেদ

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

চট্টগ্রামের চকবাজার এলাকায় ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয় দিয়ে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদ আক্তারের অভিযানকে ঘিরে বিরাজ করছে উত্তেজনা। এসময় উত্তেজিত ব্যবসায়ীরা গুলজার মোড় সড়ক অবরোধ করে রাখে।

শনিবার দুপুরে চট্টগ্রামের চকবাজার এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মুর্শেদকে চকবাজার থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেন কোন ধরনের নোটিশের তোয়াক্কা না করে আইন বহির্ভূতভাবে বিভিন্ন ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড গুড়িয়ে দেয় পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদ। এ সময় কোন ম্যাজিস্ট্রেট উপস্থিত না থাকলেও নিজেকে ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে পরিচয় দেন পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোর্শেদ। বিভিন্ন ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড গুঁড়িয়ে দেয়ার পর উত্তেজিত ব্যবসায়ীরা স্থানীয় গুলজার মোড় সড়ক অবরোধ করে রাখে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এসময় একটি বৈদ্যুতিক খুঁটিতে আগুন ধরে গেলে ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়া হয়। ফায়ার সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এলাকাবাসী ও স্থানীয় ব্যবসায়ীদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে পরিছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদকে থানায় আটকে রাখার খবর পেয়ে চকবাজার থানার সামনে অবস্থান নেয় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ১০০/১৫০ পরিচ্ছন্ন কর্মী।  সন্ধ্যা ছয়টার দিকে চকবাজার থানায় আসেন বাগমনিরাম ওয়ার্ড কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন। তিনি  পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদকে থানা থেকে  ছাড়িয়ে নিয়ে যান।

জানতে চাইলে কাউন্সিলর গিয়াস উদ্দিন বলেন,  শনিবার নির্ধারিত অভিযান ছিল না। রবিবার ফুটপাত দখলমুক্ত করার অভিযান ছিল। তবে কোন ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড গুঁড়িয়ে দেওয়ার কোনো নির্দেশনা ছিল না। ‘

স্থানীয় একটি ভবনের মালিক ইলিয়াস জানান, সিডিএ’র অনুমোদন নিয়ে ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছে। রাস্তা থেকে ভবনের দুরত্ব ১৫ ফিট। কিন্তু আইনের তোয়াক্কা না করে, কোন ধরনের নিয়ম না মেনে চসিকের পরিছন্ন  কর্মকর্তা ভবনে অবস্থিত দোকানের সাইনবোর্ড গুঁড়িয়ে দিয়েছে।

চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা  ফেরদৌস জাহান জানান, নিয়ম থাকলেও অভিযানের ব্যাপারে চকবাজার থানাকে কোন কিছু জানায়নি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন।

মতামত