সাতকানিয়ার সোনাকানিয়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থীর প্রচারণা বহরে হামলায় আহত ১০

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্কঃ

আসন্ন ৭ম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর প্রথম দিনে চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার সোনাকানিয়া ইউনিয়নে সোনাকানিয়া ইউনিয়নে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী যুবলীগ নেতা সেলিম উদ্দিন চৌধুরীর প্রচারণার বহরে হামলা ও ভাঙচুর চালিয়েছে একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন প্রচারণায় অংশ নেওয়া অন্তত ১০ জন নেতা-কর্মী। এসময় ভাঙচুর করা হয় ৮টি সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ১৫/২০টি মোটরসাইকেল। সোমবার (২৪ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার সোনাকানিয়া গারাঙ্গিয়া বদর সিকদারপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। স্বতন্ত্র প্রার্থী সেলিম উদ্দিন চৌধুরী এ হামলার জন্য এলডিপি নেতা থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হওয়া জসিম উদ্দীন তার ভাই খোরশেদুল আলমসহ তাদের সমর্থকদের দায়ী করেছেন।

হামলার এই ঘটনায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা সেলিম উদ্দিন চৌধুরী ছাড়াও আহতদের মধ্যে রয়েছেন— তার ছোট ভাই জসিম উদ্দিন চৌধুরী (৩২), মকসুদুর রহমান (৫০), আমানুল হক (২৮), হোসাইন মোহাম্মদ (৩২), মোহাম্মদ ফারুক হোসেন (৩৫), আবু সাঈদ হাসান (৩২), আব্দুল গফুর (৫২)।

স্বতন্ত্র প্রার্থী সেলিম উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘সোমবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে গারাঙ্গিয়ার বড় হুজুর ও ছোট হুজুরের কবর জিয়ারত শেষে গাড়িবহর নিয়ে প্রচারণায় বের হয়েছি। বদর সিকদারপাড়া এলাকায় পৌঁছালে নৌকার প্রার্থী এলডিপি নেতা জসিমের ভাই খোরশেদের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী লোহার রড, লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে আমাদের বহরে হামলা চালিয়ে গাড়ি ভাংচুরসহ ১০ জন নেতা-কর্মীকে আহত করে। এ সময় হামলাকারীরা গাড়িবহরের ৮টি অটোরিকশা ও ১৫/২০টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে।

সাতকানিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে কর্মরত চিকিৎসক উচ্ছ্বাস তালুকদার জানান, মারামারির ঘটনায় আহত ৮ জনকে সোমবার সন্ধ্যার দিকে হাসপাতালে আনা হলে তাদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জসিম উদ্দীন বলেন, বিদ্রোহী প্রার্থী সেলিম চৌধুরীর নেতৃত্বে আমার প্রচারণার গাড়িতে হামলা চালানো হয়েছে। এতে সেলিম উদ্দিন নামের আমার এক কর্মী আহত হয়েছেন।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল জলিল বলেন, সোমবার বিকেলে গারাঙ্গিয়ায় ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বী এক পক্ষের প্রচারণার গাড়িতে হামলার খবর পেয়ে সাথে সাথে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। ওই ঘটনায় কয়েকজন সামান্য আহত হয়েছেন বলে জানতে পেরেছি। এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেলে আইনগতভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে হামলা ও ভাঙচুরের এই ঘটনার প্রতিবাদে মঙ্গলবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেল চারটায় মির্জাখীল বাংলাবাজারে মানববন্ধনের ডাক দিয়েছে স্থানীয় জনসাধারণ।

উল্লেখ্য, আগামী ৭ই ফেব্রুয়ারি সাতকানিয়ার ১৬টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেলিম উদ্দিন চৌধুরী সোনাকানিয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের ‘বিদ্রোহী’ প্রার্থী হিসেবে মোটরসাইকেল প্রতীকে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন। তিনি সাতকানিয়া উপজেলা যুবলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক ও বর্তমানে সাতকানিয়া উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য।

মতামত