দুই নেতাকে ছুরিকাঘাত: জড়িতদের বহিষ্কারের দাবিতে আনোয়ারায় ঝাড়ু মিছিল

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র প্রতিনিধি সভা শেষে নগরীর দোস্ত বিল্ডিংয়ের সামনে দুই নেতাকে ছুরিকাঘাত করার প্রতিবাদে আনোয়ারায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে তৃণমূলের কর্মীরা। নেতাদের উপর হামলার ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে কোন সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহন না করার কারণে ক্ষোভে- বিক্ষোভে উত্তাল পুরো দক্ষিণ চট্টগ্রাম।

সোমবার (১৭ অক্টোবর) এ বিক্ষোভ মিছিল করেন বিএনপি’র তৃণমুলের নেতাকর্মীরা। মিছিলে ঝাড়ু উঁচিয়ে বিক্ষোভ করেছেন বিক্ষোভকারীরা।

তৃনমুল বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল শেষে বক্তারা বলেন, আগামী তিনদিনের মধ্যে ‘কালো হেলাল’ ‘জিয়া ‘ফোরকান’ ‘ ইসমাইল’ মনির ‘কে বহিষ্কার করা না হলে আনোয়ারা উপজেলার বিএনপি, যুবদল -ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা মানববন্ধন ও গণ অনশনের কর্মসূচী দেবে।

বক্তারা বলেন, তিন দিনের মধ্যে এই ঘটনার সাথে জড়িতদের দল থেকে বহিষ্কার করা না হলে সংবাদ সম্মেলন করে পরবর্তী কর্মসূচী ঘোষণা দেওয়া হবে।

বক্তারা আরো বলেন, জিয়া-ফোরকানের নেতৃত্বে একই সন্ত্রাসী চক্র সাবেক সংসদ সদস্য সরওয়ার জামাল নিজামের উপর হামলা করেছিল। তখন এই উশৃংখল সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ার করনে একই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটেছে। জাতীয়তাবাদী আদর্শের সৈনি, বিএনপির দুই পরীক্ষিত নেতার উপর এমন বর্বরোচিত হামলার নেপথ্য নায়কদের আনোয়ারায় অবাঞ্চিত করা হবে।

নেতাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, দুই বিএনপি নেতার উপর সন্ত্রাসীদের হামলার পর থেকে আনোয়ারা উপজেলা বিএনপির সব গ্রুপ-উপগ্রুপগুলো একজোট হয়ে মাঠে নেমেছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র আহবায়ক ভারতে চলে গেছেন। হামলার পর তিনি আহতদের দেখতে হাসপাতালেই যান নি। দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব মোস্তাক আহমেদও আহতদের দেখতে যাননি হাসপাতালে।

প্রসঙ্গত, দক্ষিণ জেলা বিএনপি’র বিভিন্ন উপজেলায় আহবায়ক কমিটি গঠন নিয়ে নজিরবিহীন অনিয়ম ও আর্থিক লেনদেনের অভিযোগ তদন্তে কেন্দ্রীয় বিএনপি থেকে সাবেক ছাত্রনেতা আজিজুল বারী হেলালকে দায়িত্ব দেয়া হয়। চট্টগ্রামে এসে বিভিন্ন উপজেলার নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভা করে অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চান আজিজুল বারী হেলাল। নগরীর দোস্ত বিল্ডিংয়ে অনুষ্ঠিত এই প্রতিনিধি সভায় আহ্বায়ক ও সদস্য সচিব এর বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ দেওয়ার কারনে প্রকাশ্যে ছুরিকাঘাত করা হয় আনোয়ারা উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহ্বায়ক হুমায়ুন কবির আনসার এবং যুবদলের সহ সভাপতি খোকাকে। ছুরিতে মারাত্মকভাবে আহত হুমায়ুন কবির দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারন সম্পাদক। ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা আনোয়ারা উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব ‘কালা হেলাল ‘কে দায়ী করেছেন। হেলাল উদ্দিন ২০০৪ সালে চট্টগ্রামের আলোচিত বিএনপি নেতা ও ব্যবসায়ী জামাল উদ্দিন অপহরণ ও হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অপরাধে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছিল । আদালতে দেয়া ১৬৪ ধারার জবানবন্দিকে কালো হেলাল, ব্যবসায়ী জামাল উদ্দিন অপহরণের ও হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছিলেন।

এই হেলাল উদ্দিনকে উপজেলা বিএনপির সদস্য সচিব করার প্রতিবাদ জানিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও মহাসচিব বরাবর অভিযোগ দিয়েছিলেন আনোয়ারা উপজেলা বিএনপির আহবায়ক ও যুগ্ম আহবায়করা।

মতামত