ই-পেপার | রবিবার , ৩রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
×

চট্টগ্রাম-১৫ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলেন এম এ মোতালেব সিআইপি

সিটিজি ভয়েস টিভি ডেস্ক:

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নিলেন ঈগল প্রতিক নিয়ে বিপুল ভোটে স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত সংসদ সদস্য এম এ মোতালেব।

বুধবার (১০ জানুয়ারি) বেলা সোয়া ১১টায় সংসদ ভবনে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এসব সংসদ সদস্যের শপথবাক্য পাঠ করান। নতুন এমপিরা একসঙ্গে সমস্বরে স্পিকারের সঙ্গে শপথবাক্য পাঠ করেন।

পরবর্তী কার্যক্রম হিসেবে সংসদের রেজিস্ট্রারে স্বাক্ষর করতে বলা হয়। শপথের পর নবাগত এমপিরা স্পিকারের সামনে শপথ ফরমে স্বাক্ষর করেন।

এর আগে দ্বাদশ জাতীয় সংসদের নবনির্বাচিত এমপিরা শপথ নেন। সকাল ১০টা ১৬ মিনিটে সংসদ ভবনের নিচতলায় এমপিদের এ শপথ পড়ান একাদশ জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

তার আগে সকাল ১০টা ১২ মিনিটে শপথকক্ষে এমপি হিসেবে নিজেই নিজের শপথ নেন স্পিকার। পরে শপথ বইয়ে স্বাক্ষর করেন তিনি। এর আগে ১০টার পরই শুরু হয় শপথগ্রহণ অনুষ্ঠান।

শপথ নিতে সকাল থেকে সংসদ ভবনে প্রবেশ করেন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের বিজয়ী সদস্যরা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ তারা একে একে ভেতরে প্রবেশ করেন।

প্রথমে স্পিকার এমপি হিসেবে নিজের শপথ নেন। পরে আওয়ামী লীগের নির্বাচিত এমপিদের শপথবাক্য পাঠ করান তিনি। শপথগ্রহণের পর শপথ বইয়ে স্বাক্ষর করেন এমপিরা।

বর্তমান সংসদের প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচিত ও অন্যান্য দল থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যদেরও পর্যায়ক্রমে শপথবাক্য পাঠ করাবেন স্পিকার।

আজই জাতীয় পার্টি ও অন্য দল থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ নেবেন।

গত ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৯টি আসনে ভোট হয়। সংসদীয় আসন ২৯২ চট্টগ্রাম-১৫ সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনে ঈগল প্রতিক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী এম এ মোতালেব ৮৫৯৫৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দী হিসেবে আওয়ামীলীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামউদ্দিন নদভী পেয়েছেন ৩৯২৬৫ ভোট।

এই আসনের ১টি পৌরসভা ও ২০টি ইউনিয়নের ১৫৭টি কেন্দ্রের ৪ লক্ষ ৫৮ হাজার ৪১১ জন ভোটারের মাঝে ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন ১ লক্ষ ২৫ হাজার ২১৮ জন ভোটার যা শতকরা হারে ২৮℅।

২৯৮ আসনের মধ্যে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ পেয়েছে ২২২ আসন ও জাতীয় পার্টি ১১টি আসনে জয় পেয়েছে। তবে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের জয়ের হার এবার বেশি। তারা ৬২টি আসনে জয় পেয়েছেন। আর মহাজোটের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টি ও জাসদের প্রার্থী নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করে একটি করে আসন পেয়েছেন। বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মোহাম্মদ ইবরাহিমও কক্সবাজারের একটি আসন থেকে জয় পেয়েছেন।

নিরঙ্কুশ বিজয় পেয়ে টানা চতুর্থ মেয়াদে সরকার গঠন করতে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

এই বিভাগের সর্বাধিক পঠিত রিপোর্ট